শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ১১:১৩ পূর্বাহ্ন১লা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

২রা শাওয়াল, ১৪৪২ হিজরি

বেনাপোলে আশা বাহিনীর তান্ডবঃ সাংবাদিকদের উপড় হামলা

বেনাপোলে আশা বাহিনীর তান্ডবঃ সাংবাদিকদের উপড় হামলা

বেনাপোল প্রতিনিধি:  বেনাপোলের বাহাদুরপুর এলাকার ত্রাস, ভূমিদস্যুসহ নানা অপরাধের হোতা আশা বাহিনীর প্রধান আশার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে ঐ এলাকার মানুষ। তার বিরুদ্ধে টু-শব্দ করার সাহস কারো নেই। টানা কয়েক বছর ধরে এলাকায়-এলাকায় তান্ডব চালিয়ে আসলেও কেউ কোন প্রতিবাদ করছেনা। আশার অপরাধের তামশা দেখছেন স্থানীয়রা। গত বৃহস্পতিবার আশা বাহিনীর অপরাধের ফিরিস্তি তুলে ধরতে গিয়ে নাজেহাল হয়েছেন ১১ সাংবাদিক।
গত বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) দুপুর ১২ টার দিকে ৩ নং বাহাদুরপুর ইউনিয়নের ধাণ্যখোলা গ্রামের মেন্দেরটেক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বেনাপোলের ৩ নং বাহাদুরপুর ইউনিয়নের ধাণ্যখোলা গ্রামের মেন্দেরটেকে ফসলী জমি বিনষ্ট করে ভূমিদস্যু , সন্ত্রাসী,মাস্তান আশা তার বাহিনী নিয়ে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে দেদারসে প্রায় শত বিঘা জমি থেকে অবৈধভাবে মাটি এবং বালি উত্তোলন করে আসছে। অবৈধ মাটি,বালু উত্তোলনের কাজে প্রায় ২০ থেকে ২৫টি ট্রাক এবং ট্রলি ব্যবহৃত হয়। মাটি,বালু ক্রয়-বিক্রয়ের কাজে ব্যবহৃত ঐ সকল ট্রাক,ট্রলির চলাচলে রাস্তার ধুলি কণায় ঐ এলাকার উঠতি ইরি-বোরো ধানের ব্যপক ক্ষতি সাধন হচ্ছে।
এছাড়া ঐ এলাকার পাকা,আধাপাকা  রাস্তা ভেঙ্গে খানাখন্দে পরিণত হচ্ছে। সেইসাথে গাড়ীর শব্দ দুষনে বাসা বাড়ীতে স্কুল,কলেজের শিক্ষার্থীরা ঠিকমত লেখাপড়া করতে পারছেনা।  মসজিদ,মাদ্রাসা গুলোয় নামাজিরা ঠিকমত সালাত আদায় করতে পারে না। এমন পরিস্থিতিতে এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। উত্তোলনকৃত মাটি পার্শ্ববর্তী অর্নব ব্রীকস ফিল্ডে বিক্রয় করা হচ্ছে বলে স্থানীয়রা জানান।
খবর পেয়ে স্থানীয় প্রায় ১০-১১ জন সাংবাদিক ঘটনাস্থলে পৌঁছলে  আশা এবং তার সন্ত্রাসী বাহিনী  সাংবাদিকদের উপর হামলা চালায়।
হিামলার শিকার সাংবাদিক সুমন জানান, দুপর সাড়ে ১২ টার দিকে সংবাদ সংগ্রহের জন্য  আমি এবং আমার সহকর্মী ৩ জন সাংবাদিক সেখানে গিয়ে মাটি উত্তোলনের ছবি তুলি।  হঠ্যাৎ কয়েকজন লোক আমাদের সাথে থাকা ক্যামেরা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। এরপর আশা ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর বাবলু,সুমন, সহ অরোও ৬/৭ জন আমাদেরকে শারিরিক ভাবে নির্যাতন করে। এদিকে একই সংবাদ সংগ্রহে সাংবাদিক সাহিদুল ইসলাম শাহিনসহ আরো ৬ সাংবাদিক ঘটনাস্থলে গেলে ঐ বাহিনী তাদের উপড়ও হামলা চালায়।  এরপর সকল সাংবাদিককে সন্ত্রাসীরা একটি বদ্ধ ঘরে অবরুদ্ধ করে রাখে।
সাংবাদিকদের আত্মচিৎকারে শুনে ঐ আশপাশের লোকজন বেনাপোল পোর্টথানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পোর্টথানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুুন খানসহ একটি দল আটক অবস্থা থেকে সাংবাদিকদের উদ্ধার করে।
নাম প্রকাশ করতে রাজি নন এমন কয়েকজন স্থানীয়রা জানান, আশা বাহিনীর কবলে কৃষি জমি বিলীন হলেও নির্যাতন সহ গুম খুনের ভয়ে মুখ খোলে না কেউ। সন্ত্রাসী আশা মাদক,গরু পাচার, জমি জবর দখল,নারী নির্যাতন সহ নানা অপকর্ম করে এলাকায় একটা ত্রাস সৃস্টি করে রেখেছে।
এ ঘটনা উল্লেখ করে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। বিষয়টি জানাজানির পর শার্শা উপজেলার সংবাদ কর্মীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। এ ঘটনার পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলীফ রেজাকে অবহিত করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মামুন খান বলেন, অভিযোগ গ্রহন করা হয়েছে তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ সহ অতিদ্রুত আসামীদেরকে আটক করা হবে।
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
© Daily Jago কর্তৃক সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT