রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ১২:০৫ অপরাহ্ন২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

২৮শে শাবান, ১৪৪২ হিজরি

ট্রেন দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনায় জমিয়তের শোক

ট্রেন দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনায় জমিয়তের শোক

ডেস্ক নিউজঃ বি-বাড়িয়ার কসবায় দুই ট্রেনের সংঘর্ষে জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ও হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সভাপতি খালিফায়ে মাদানী শায়েখ আব্দুল মুমিন ও মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী।

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) এক যৌথ বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় বলেছেন, এই দূর্ঘটনায় সারাদেশের মানুষের সাথে আমরাও শোকে স্তব্ধ। আমরা নিহতদের রুহের মাগফিরাত কামনা ও জান্নাতের জন্য দোয়া করছি এবং আহতদের দ্রুত সুস্থতা ফিরে পাওয়া ও ক্ষতি কাটিয়ে উঠার জন্য মহান পরওয়ারদিগারের দরবারে বিশেষ দোয়া করছি। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে জমিয়তের নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের জনতার প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি।

বিবৃতিতে জমিয়ত নেতৃদ্বয় আরো বলেন, গত কয় মাস ধরে দেশে একের পর এক ট্রেন দূর্ঘটনা ও ট্রেন চলাচলে নানা রকম বিঘ্নকর পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার পর বিভিন্ন মহল থেকে ট্রেন যোগাযোগ ব্যবস্থায় লাইন ও সিগনাল ব্যবস্থায় নানা রকম ত্রুটি, নিরাপত্তা ব্যবস্থায় গাফলতি, লোকো মাস্টার ও স্টেশন মাস্টারদের নানা রকম দায়িত্বহীনতা ও যোগ্যতার অভাব এবং বহুমাত্রিক অনিয়মের খবর পত্রপত্রিকাসহ সামাজিক যোগাযোগ্য মাধ্যমে অহরহ সামনে এসেছে। এসব খবরে জনপরিসরে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা নিয়ে ব্যাপক আশংকা ও আলোচনা-সমালোচনা হয়েছে। কিন্তু রেল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে এসব সংকটের সমাধানে আমরা দৃশ্যমান জোর তৎপরতা দেখিনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া অনেক ভিডিওতে এমনও দেখা গেছে, ট্রেন স্থান অতিক্রম করার সাথে সাথে ভিডিও ধারণকারী খালি হাতেই লাইনের নাট-বল্টু খুলে ফেলছেন, স্লিপার এদিক-ওদিক সরিয়ে দেখাচ্ছেন। এমন ভিডিও দেখে অনেকে ট্রেন পথের নিরাপত্তা নিয়ে ভীত হয়ে পড়েছেন।

তারা বলেন, যে কোন দূর্ঘটনা ও অনিয়ম সামনে আসার পর ব্যাপক সমালোচনা শুরু হলে পরিস্থিতি শান্ত করতে তড়িঘড়ি তদন্ত কমিটি গঠন এবং প্রতিশ্রুতি পর্যন্তই শেষ। এরপর কার্যব্যবস্থা আর চোখে পড়ে না। গত রাতে বি-বাড়ীয়ার ভয়াবহ দূর্ঘটনার পরও অনেকগুলো তদন্ত কমিটির খবর ব্যাপকভাবে প্রচার করা হচ্ছে। ক্ষতিপুরণ দেওয়ার কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু অতীত অভিজ্ঞতা থেকে এমন তদন্ত কমিটিতে মানুষ আর ভরসা খুঁজে পায় না। অথচ, এর আগের দূর্ঘটনাসমূহের পর এবং নানা অনিয়মত সামনে আসার পর যদি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কার্যব্যবস্থা নেওয়া হতো, গত রাতের এই ভয়াবহ দূর্ঘটনা থেকে যাত্রীরা হয়তো রক্ষা পেতেন।

নেতৃদ্বয় বলেন, রেল কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলতে চাই, দেশের মানুষ তাৎক্ষণিক একের পর এক শ্রুতিমধুর প্রতিশ্রুতি নয়, বরং কার্যব্যবস্থা দেখতে চায়। আমরা চাই বি-বাড়ীয়ার দূর্ঘটনায় প্রকৃত দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক, যাতে কেউ সামান্যতমও দায়িত্বহীনতার সাহস খুঁজে না পায়। রেল লাইন, সিগনালিং ব্যবস্থার ত্রুটিসমূহ জরুরীভিত্তিতে মেরামত করতে হবে। স্টেশন মাস্টার ও লোকো মাস্টারদের দায়িত্ব পালনে ফিটনেস পরীক্ষার পাশাপাশি তাদেরকে কর্তব্যবোধ ও মানবিক দায়বোধের বিষয়ে কাউন্সিলিং এর মাধ্যমে আরো সচেতন করে তুলতে হবে। দূর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদেরকে উপযুক্ত আর্থিক সহায়তা এবং আহতদের বিনামূল্যে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা নিতে হবে।

বিবৃতিতে জমিয়ত শীর্ষ নেতৃদ্বয় আরো বলেন, রেলে ভয়াবহ রকম অব্যবস্থাপনা ও দায়িত্বহীনতার জন্যই বারবার দুর্ঘনা ঘটছে। আমরা বিশ্বাস করি, সরকার জনসেবায় প্রকৃতই আন্তরিক হয়ে রেল প্রশাসনকে যথাযথ উদ্যোগ নিতে বলে নিরবিচ্ছিন্ন তদারকি করলে, রেলপথকে নিরাপদ করা এবং এই খাতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে এনে যাত্রী নিরাপত্তা ও যাত্রীসেবা আস্থাবান করে গড়ে তোলা কঠিন কিছু নয়।

ডেস্ক নিউজঃ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





themesba-zoom1715152249
© Daily Jago কর্তৃক সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।
Developed By: Nagorik IT